নওমুসলিমদের প্রতি আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য

মানুষ মনুষের জন্য, আমরা এই উক্তিটির সাথে অতি পরিচিত। মানুষ মানুষের জন্য বলা তো বাদই দিলাম। একজন মুসলমান আরেক মুসলমানকেই যেন দেখতে পারিনা। যা সত্যিই অতি দু:খজনক। মানুষ শান্তি প্রিয় কিন্তু পৃথিবীতে কিছু মানুষরূপে অমানুষ রয়েছে যাদের জন্য আমাদের সমাজ কলঙ্কিত। যাইহোক, আমরা দেখে থাকি মাঝে মাঝে অনেক ভিন্ন ধর্মের ব্যক্তি আমাদের শান্তির ধর্ম ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেন, যাদেরকে আমরা নওমুসলিম বলে থাকি। আবার দেখা যায় পুরো একটি পরিবারই ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেন। এর ফলে তাদের সমাজ থেকে বের হয়ে নতুন কোন সমাজে গিয়ে তাদের বসবাস করতে হয়। এক্ষেত্রে অধিকাংশ ব্যক্তি বা পরিবারদের চরম আর্থিক সমস্যাই পড়তে হয়।

আমাদের কি করা উচিত?

আমিতো মনে করি মুসলিম প্রধান দেশ হিসেবে, এই দায়িত্ব সর্ব প্রথম সরকারকে গ্রহণ করা উচিত। সরকারি কোষাগার থেকে তাদেরকে ভাতা দেওয়া এবং স্বসম্মানে যাতে সমাজে বসবাস করে যেতে পারে তার একটি স্থায়ী ব্যবস্থা করা।

এছাড়া এলাকার জনগনেরও দায়িত্ব আছে। এই রকম নওমুসলিম পরিবার গুলোকে সাহয্য সহযোগীতা করতে পারার মত সমাজে অনেক সক্ষম ব্যক্তি আছেন। সকলে মিলে তাদের জন্য একটু সাহায্যের হাত বাড়ালে তাদের সামন্য পরিমানও কষ্ট হবার কথা না।

নওমুসলিমরা কি ধরনের লাঞ্চনা-বঞ্চনায় পড়তে পারেন

আমাদের অবহেলার কারনে নওমুসলিমরা যদি কষ্টের মাঝে দিন কাটাই তবে এই ব্যপারে সন্দেহ নেই যে, এর প্রভাব খুব একটা ভাল হবে না। এমন ব্যক্তি যদি ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে যে, আমাদের ধর্ম ইসলাম গ্রহন করার কারণে তার পূর্বের সকল সম্পদ থেকে বঞ্চিত হতে হয়েছে। তবে, আল্লাহ না করেন কষ্টের কারনে তার মধ্যে যেকোন ধরনের দুর্বলতা সৃষ্টি হতে পারে। তার পূর্বের ধর্মের লোকজন তার দিকে আঙ্গুলতুলে আজে বাজে কথা বলতে পারে। আর এর জন্য কিন্তু আমরাই দায়ী।

বৃষ্টির পানি কিন্তু সুমুদ্রের ঢেউ এর মত আকাশ থেকে নামে না, এক ফোটা এক ফোটা করে পড়ে আর তাতেই পুরো জমিনের জন্য যথেষ্টর চেয়ে বেশি হয়ে যায়। ঠিক একেক জনের ছোট ছোট সাহয্যের হাত বাড়ালে এই রকম নওমুসলিমদের জন্য যথেষ্টর চেয়ে অনেক বেশি হয়ে যাবে।

মুসলিমদের একটি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে, তাদের সম্পদের যাকাত, ওশর, ফেতরা ইত্যাদি প্রদান করা। বাস্তবিক পক্ষে আমরা যারা সম্পদশালী ব্যক্তিগন তারা যদি নিজ দায়িত্বে আমাদের সম্পদের যাকাত, ওশর দিয়ে থাকতাম তবে কোন ব্যক্তিই আজ না খেয়ে মারা যেত না। এমনকি ভিক্ষুকই থাকতো না। আমরা শুধু নিজেরটাই বুুঝে থাকি। সকল সাধারন মানুষের মত তাদেরও অধিকার আছে সুন্দর একটি জীবন ধারন করা। আসুন আমরা একটু সচেতন হয়। আমরা প্রত্যেকেই সচেতন হলে আর বেশি কিছু প্রয়োজন হবে না।

মন্তব্য